LALMOHAN_CHITTAGONGHEROIC The Lector 

চট্টগ্রামের বিপ্লবীরা- লালমোহন সেন

১৯০৯ সালে চট্টগ্রাম লাগোয়া নোয়াখালির সন্দীপে জন্মগ্রহণ করেন লালমোহন সেন। ছাত্র বয়স থেকেই রোগীর সেবা ও নানারকম সমাজসেবামূলক কাজে অংশ নিতেন লালমোহন। রামকৃষ্ণ মিশনের কর্মী ছিলেন তিনি। ১৯২৮-২৯ সাল নাগাদ কংগ্রেসের দিকে আকৃষ্ট হন লালমোহন।

লাহোর ষড়যন্ত্র মামলায় অনশনে মৃত্যু হয় বন্দি যতীন দাসের। যতীন দাসের স্মৃতিতে চট্টগ্রামে স্মরণযাত্রা বের হয়। স্মরণযাত্রার আয়োজনে বিশেষ ভূমিকা নেন লালমোহন। ততদিনে গুপ্তবিপ্লবীদের সংস্পর্শে চলে এসেছেন তিনি। চট্টগ্রাম অস্ত্রাগার লুন্ঠনের পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে। অনেক টাকার দরকার। টাকার জোগাড়ে কাকার সিন্দুক ভেঙেছিলেন লালমোহন।

চট্টগ্রাম অস্ত্রাগার লুঠের সময় ব্রিটিশ পুলিশকে আটকাতে পরিবহণ ব্যবস্থা বা যোগাযোগ ছিন্ন করার কাজ করেছিলেন লালমোহন সেন। অস্ত্রাগার লুন্ঠন মামলায় আন্দামানে নির্বাসিত হন তিনি। জেলে অনশন আন্দোলনে অংশ নেন। জেলে থাকতে থাকতেই কমিউনিস্ট হন লালমোহন সেন। বিভিন্ন জেল ঘুরে আসেন ঢাকা জেলে। সেই জেলের বন্দিরা ফ্যাসিস্ট বিরোধী বিবৃতি জারি করেন। সেই বিবৃতিপত্রে সই করেছিলেন লালমোহন সেনও।

১৯৪৬ সালে ঢাকা জেল থেকে প্যারোলে মুক্তি পান। ফেরেন জন্মস্থান নোয়াখালির সন্দীপে। ৪৬-র দাঙ্গায় সেখানেই প্রাণ হারান লালমোহন সেন।

Related posts

Leave a Reply

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: